মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রকল্প

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক, কুড়িগ্রাম কর্তৃক  জেলায় বাস্তবায়িত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজঃ

 

(ক) কুড়িগ্রাম বন্যা নিয়ন্ত্রন নিষ্কাশন  প্রকল্প (দক্ষিণ ইউনিট)ঃ 

 

বাস্তবায়ন কালঃ ১৯৭৫-১৯৭৮

 

প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

 

১১৪ কিমিঃ বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ, ১৭টি রেগুলেটর, ৫.৬৫০ কিমিঃ নদীতীর সংরক্ষণ কাজ, ২টি গ্রোয়েন (গ্রোয়েন এ ও গ্রোয়েন বি), ১টি  সলিড, স্পার ও ১৩ টি ক্রসবার (তিস্তা নদীতে ৫ টি, ধরলাতে ৬ টি এবং ব্রহ্মপুত্রে ২ টি )। 

 

এলাকাঃ

 

প্রকল্পের অভ্যন্তরে কুড়িগ্রাম শহরাঞ্চল, রাজারহাট, উলিপুর ও চিলমারী উপজেলা শহর, উলিপুর তিস্তা ৫০ কিমিঃ রেললাইন, প্রায় ৫০ কিমিঃ পাকা রাস্তা, ৮০০ কিমিঃ কাঁচা রাস্তা, চিলমারী বন্দরসহ বহু সরকারী ও বেসরকারী সহাপনা।

 

বন্যা মুক্ত এলাকাঃ ১১৭১৮৪ হেক্টর।

 

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বর্তমান অবস্থাঃ

দক্ষিণ ইউনিটের ১১৪ কিঃ মিঃ বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের কুড়িগ্রাম পওর বিভাগের আওতায় ৯৩ কিঃ মিঃ বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের মধ্যে ৮ (আট) টি স্থানে ১২.৭০০ কিঃ মিঃ এবং উত্তর ইউনিটের ৯৬  কিঃ মিঃ বাঁধের মধ্যে অত্র বিভাগের আওতায় ৪১ কিঃ মিঃ বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের মধ্যে ৩ (তিন) টি স্থানে ১০.৪০০ কিঃ মিঃ সহ সর্বমোট ২৩.১০০ কিঃমিঃ বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ বিগত ২০১০ সাল হতে ২০১৬ সালের বন্যায় অধিক ঝুঁকিপূর্ণ/ (Breached)   অবস্থায় আছে যা পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে পুনঃনির্মাণ করা প্রয়োজন। এছাড়াও গত ২০১৭ সালের ভয়াবহ বন্যায় ৪০ টি পয়েন্টে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে যায় যার বেশিরভাগই ইতোমধ্যে পুনঃনির্মাণ করা হয়েছে।

(খ) কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলাধীন বৈরাগীরহাট এবং চিলমারী বন্দর এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের ডান তীর রক্ষা প্রকল্প (ফেজ-১)

বাস্তবায়ন কালঃ জুলাই ২০০৭ থেকে জুন ২০০৯

ব্যয়ঃ  ৯৬৮৮.০০ লক্ষ টাকা

দৈর্ঘ্যঃ ২.কিমিঃ

(গ) কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উলিপুর উপজেলাধীন বৈরাগীরহাট চিলমারী বন্দর এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের ডান তীর রক্ষা প্রকল্প (ফেজ-২)

বাস্তবায়ন কালঃ নভেম্বর/২০১২ হতে জুন ২০১৭ পর্যন্ত।

প্রকল্প ব্যয়ঃ ২৫৬৯১.৭৯ লক্ষ টাকা।

তীর সংরক্ষণ কাজঃ ৬৪৫০ মিটার

স্পারঃ ১টি

 

(ঘ) “গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলাধীন সাঘাটা বাজার তৎসংলগ্ন এলাকা যমুনা নদীর ভাঙ্গন হতে রক্ষা এবং কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলাধীন দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের (বিওপি ক্যাম্পের নিকট) সাহেবের আলগা নামক ¯হানে ব্রহ্মপুত্র নদের বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্প” রৌমারী উপজেলাধীন সাহেবের আলগা নামক ¯হান।

প্রকল্প ব্যয়ঃ ১৮৬৯১.৮০ লক্ষ টাকা।

কুড়িগ্রাম অংশে নদী তীর সংরক্ষণ কাজঃ ২০৬৫ মিটার ( ব্যয় ৪৬.৭৭ লক্ষ টাকা)

             

 

(ঙ) কুড়িগ্রাম জেলার ভূরুঙ্গামারী উপজেলাধীন সোনাহাট ব্রীজের সন্নিকটে দুধকুমার নদীর ভাঙ্গন হতে ভূরুঙ্গামারী-মাদারগঞ্জ সড়ক রক্ষা এবং উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ হতে বজরা সিনিয়র মাদ্রাসা পর্যন্ত তিস্তা নদীর বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্প।

বাস্তবয়ন কালঃ ০১ জুলাই ২০১২ হতে ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত

প্রকল্প ব্যয়ঃ ৫৪৮০.১৯ লক্ষ টাকা।

স্থায়ী তীর সংরক্ষণ কাজঃ ২১০০ মিটার

গ্রোয়েনঃ ১টি

স্পারঃ ১টি

সেমিপারমানেন্ট তীর সংরক্ষণ কাজঃ ৩০০ মিটার

 

 

(চ) জলবায়ু পরিবর্তন জনিত প্রভাব মোকাবেলায় কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলাধীন জিঞ্জিরাম (সীমান্ত) নদীর ভাঙ্গন হতে বামতীর রক্ষা প্রকল্প।

প্রকল্প ব্যয়ঃ ৯৯.৪০ লক্ষ টাকা।

তীর সংরক্ষণ কাজঃ ২৪০ মিটার।

 

(ঘ) ‘‘গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলাধীন সাঘাটা বাজার তৎসংলগ্ন এলাকা যমুনা নদীর ভাঙ্গন হতে রক্ষা এবং কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলাধীন দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের (বিওপি ক্যাম্পের নিকট) সাহেবের আলগা নামক সহানে ব্রহ্মপুত্র নদের বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্প’’ রৌমারী উপজেলাধীন সাহেবের আলগা নামক সহান।

প্রকল্প ব্যয়ঃ ১৮৬৯১.৮০ লক্ষ টাকা।

কুড়িগ্রাম অংশে নদী তীর সংরক্ষণ কাজ ২০৬৫ মিটার ( ব্যয় ৪৬.৭৭ লক্ষ টাকা)

(ঘ) কুড়িগ্রাম জেলার ভূরম্নঙ্গামারী উপজেলাধীন সোনাহাট ব্রীজের সন্নিকটে দুধকুমার নদীর ভাঙ্গন হতে ভূরম্নঙ্গামারী-মাদারগঞ্জ সড়ক রক্ষা এবং উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ হতে বজরা সিনিয়র মাদ্রাসা পর্যন্ত তিস্তা নদীর বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্প।

বাস্তবায়ন কালঃ ০১ জুলাই ২০১২ হতে ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক, কুড়িগ্রাম কর্তৃক  জেলায় বাস্তবায়িতব্য বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজঃ

ক) কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী ও উলিপুর উপজেলাধীন বৈরাগীরহাট ও চিলমারী বন্দর এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের ডানতীর সংরক্ষণ ও ড্রেজিং প্রকল্প    

প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

  •     তীর সংরক্ষণ কাজঃ ৪.৮ কিঃমিঃ
  •     ড্রেজিংঃ ২০ কিঃমিঃ
  •     ৮ ভেন্ট রেগুলেটরঃ ১ টি
  •     বিকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণঃ ১.০০ কিঃমিঃ
  •     বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ মেরামত  ও  পূনরাকৃতিকরণঃ ৫২.৭ কিঃমিঃ

প্রকল্প ব্যয়ঃ  ৬৫২.১২ কোটি টাকা

মন্তব্যঃ জরুরীভিত্তিতে প্রকল্পসমূহ অনুমোদন হওয়া একান্ত প্রয়োজন।

খ) কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী ও রাজিবপুর উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদের বাম তীর সংরক্ষণ প্রকল্প। 

প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

  •  তীর    সংরক্ষণ কাজঃ ৭.৩  কিঃমিঃ
  •  ড্রেজিংঃ ২৫  কিঃমিঃ         

প্রকল্প ব্যয়ঃ ৯১৯.৮২ কোটি টাকা

গ) কুড়িগ্রাম জেলার কুড়িগ্রাম সদর ও রাজারহাট উপজেলাধীন ধরলা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণসহ বাম ও ডানতীর সংরক্ষন প্রকল্প

প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

  • তীর সংরক্ষণ কাজঃ ১৬.৬৬৯  কিঃমিঃ
  • ড্রেজিংঃ ৩০.০০ কিঃমিঃ
  • বিকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণঃ ১৬.৬৫৫ কিঃমিঃ
  • বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ মেরামত  ও  পূনরাকৃতিকরণঃ ২৮.৬৮০ কিঃমিঃ
  • নদীতীর সংরক্ষণ কাজ মেরামত/পূনর্বাসনঃ ১.০০ কিঃমিঃ

প্রকল্প ব্যয়ঃ ৬৩৩.৭২ কোটি টাকা

ঘ) তিস্তা নদীর বামতীরে রাজারহাট ও উলিপুর উপজেলায় Series of T-Head Groynes  নির্মাণের মাধ্যমে নদীভাঙ্গন রোধ প্রকল্প।

প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

  • টি-হেড  গ্রোয়েন নির্মাণঃ ৭ টি
  • ড্রেজিংঃ ১২.০০ কিঃমিঃ
  • বিকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণঃ ১৬.৬৫৫ কিঃমিঃ

প্রকল্প ব্যয়ঃ ২৪১.৮১ কোটি টাকা

ঙ) কুড়িগ্রাম জেলার কুড়িগ্রাম সদর, ভুরুঙ্গামারী ও নাগেশ্বরী উপজেলাধীন দুধকুমার নদীর ভাঙ্গন হতে ডান ও বামতীর সংরক্ষণ ও ড্রেজিং প্রকল্প

প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

  • তীর সংরক্ষণ কাজঃ ১৪.৯৩ কিঃমিঃ
  • ড্রেজিংঃ ৪৯.৬০ কিঃমিঃ
  • বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণঃ ৭.৩৫  কিঃমিঃ
  • বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ মেরামত  ও  পূনরাকৃতিকরণঃ ৩৩.৩৫ কিঃমিঃ

প্রকল্প ব্যয়ঃ ৭৪৫.৬২   কোটি টাকা

চ) কুড়িগ্রাম জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত প্রধান নদ-নদীসমূহ ড্রেজিং করে বন্যা ও নদীভাঙ্গন রোধ,  নাব্যতা বৃদ্ধি এবং ভূমি পুনরূদ্ধার প্রকল্প।  

 প্রধান অঙ্গ সমূহঃ

  • ড্রেজিংঃ ১৪৮.০০ কিঃমিঃ

প্রকল্প ব্যয়ঃ ৫৬৩.১৩ কোটি টাকা

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter